মা ইলিশ শিকারের দায়ে ৯ জেলেকে পৃথক মেয়াদে কারাদণ্ড এবং অর্থদণ্ড।

 

 

মা ইলিশ শিকারের দায়ে ৯ জেলেকে পৃথক মেয়াদে কারাদণ্ড এবং অর্থদণ্ড।

চাঁদপুরের মতলব উত্তর ও হাইমচর উপজেলায় সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে মা ইলিশ শিকারের দায়ে ৯ জেলেকে পৃথক মেয়াদে কারাদণ্ড
এবং এক জেলেকে অর্থদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।শুক্রবার সকালে দণ্ডপ্রাপ্ত জেলেদের চাঁদপুর জেলা কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।

এর আগে বৃহস্পতিবার রাত ৮টার দিকে হাইমচর ও মতলব উত্তর উপজেলা টাস্কফোর্সের সদস্যরা মেঘনায় ইলিশ শিকার অবস্থায় এসব জেলেদের আটক করেন।

শুক্রবার সন্ধ্যায় পৃথক ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন হাইমচর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা
ফেরদৌসি বেগম and মতলব উত্তর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শারমিন আক্তার।

এই সময় টাস্ক ফোর্স ১৫০ KG মা ইলিশ and ২টি মাছ ধরা নৌকা জব্দ করেন,
হাইম চর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউ এন ও) ফেরদৌসি বেগম আটক ছয় জেলেকে এক বছর করে কারাদণ্ড প্রদান করেন।

এ ছাড়া হাইমচর উপজেলার নীলকমল ইউনিয়নের ঈশানবালা এলাকায় শুক্রবার গভীর রাত থেকে
শনিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে মেঘনা নদীতে মা ইলিশ আহরণ করে পালিয়ে যাওয়ার সময় ৬ জেলেকে আটক করা হয়।

সাথে সাথে ইলিশ ধরার ৮ কেজি জাল এবং মাছ জব্দ করেন।

সাথে সাথে ইলিশ ধরার ৮ কেজি জাল এবং মাছ জব্দ করেন। because
জব্দকৃত জাল because আগুনে পুড়িয়ে ফেলা হয় and মাছগুলো স্থানীয় এতিমখানা মাদরাসায় দেয়া হয়।

চাঁদপুর জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো.আসাদুল বাকী বলেন, because
বৃহস্পতিবার রাত ৮টার দিকে হাইমচর উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি রিগ্যান চাকমা ভ্রাম্যমাণ আদালতে দুজন জেলেকে দুই বছর করে কারাদণ্ড দিয়েছেন।

চাঁদপুর জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. আসাদুল বাকি জানান, ২ উপজেলায় কারাদন্ড প্রাপ্ত জেলেদের শনিবার সকাল ১১টায় চাঁদপুর জেলা কারাগারে পাঠানো হয়। অভয়াশ্রম এলাকায় জেলা উপজেলা টাস্কফোসের অভিযান অব্যাহত থাকবে। because

এবং মতলব উত্তর উপজেলা নির্বাহী because কর্মকর্তা স্নেহাশীষ দাশ আরো একটি ভ্রাম্যমাণ আদালত
পরিচালনার মাধ্যমে সাতজন জেলেকে এক মাস করে কারাদণ্ড এবং একজনকে ৫০০ টাকা অর্থদণ্ড দিয়েছেন।

ইউএনও শারমিন আক্তার বলেন, নিষেধাজ্ঞা because চলাকালীন সময়ে ইলিশ আহরণ, বেচাকেনা, পরিবহন ও মজুুদ সম্পূর্ণ বন্ধ থাকবে।
কারাদন্ড প্রাপ্ত জেলেরা হচ্ছেন- হাইমচর উপজেলার চরভৈরবী এলাকার কাসেম পাটওয়ারী,
কাসেম মোল্লা and মতলব উত্তরে আটক মুন্সিগঞ্জ জেলার সাইদ হোসেন, মেহেদী হাসান, মো. ইউসুফ মোল্লা, নবী হোসেন ও হযরত আলী।

আমরা দিনরাত নদীতে অভিযান because পরিচালনা করছি, জাতীয় সম্পদ যারা বিনষ্ট করবে তারা দেশের শত্রু। তাদের কোন ছাড় দেয়া হবে না।

অপরদিকে,চাঁদপুরের so মতলব উত্তর ও হাইমচরে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে মেঘনা নদীতে মা ইলিশ
শিকার করায় সাত জেলেকে পৃথক but ভ্রাম্যমান আদালতে এক বছর করে কারাদন্ড প্রদান করা হয়।

নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে কেউ নদীতে নামলে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। প্রতিদিন আমাদের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

এই সময় সুমন মোল্লা (১৭) নামে কিশোরকে so বয়স কম হওয়ায় ৫ হাজার টাকা অর্থদন্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত। because

কারাদণ্প্রাডীপ্ত because জেলেরা হলেন- হাইম চর উপজেলার মজিবর রাঢ়ী বয়স 45) মো. সাইফুল ইসলাম বয়স (20), so
সদর উপজেলার আক্কাছ আলী খান বয়স (42), মো: সুমন খান বয়স (35), মো. আরিফ বয়স (20) ও মো. রিপন গাজী বয়স (18)

আটক জেলেরা সবাই স্থানীয় বলে জানা গেছে।

Leave a Reply