You are currently viewing ভারত-চীন সীমান্তে উত্তেজনা শেষ হওয়ার কোন নাম লক্ষনই নেই।

ভারত-চীন সীমান্তে উত্তেজনা শেষ হওয়ার কোন নাম লক্ষনই নেই।

ভারত-চীন সীমান্তে উত্তেজনা শেষ হওয়ার কোন লক্ষনই নেই।

গতদুই দিন আগে চীন জানিয়েছিল যে তারা ভারত সরকার নিয়ন্ত্রিত অঞ্চল লাদাখ এবং রাজ্য অরুণাচল প্রদেশকে স্বীকার করে না।
লাদাখ সীমান্তে ভারতের কমান্ডারদের ‘পূর্ণ স্বাধীনতা’ দেয়া হয়েছে, বলছে ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমগুলো

এবার বৃহস্পতিবার নয়াদিল্লি পাল্টা তোপ দেগে স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে যে তাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে মন্তব্য করার অধিকার বেইজিংয়ের নেই।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব because গণমাধ্যমকে বলেন, ‘কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল জম্মু,
কাশ্মীর ও লাদাখ ভারতের অবিচ্ছেদ্য অংশ ছিল, আছে এবং থাকবে। because

এবং তারা পরিস্থিতি বিবেচনায় সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন ঐ খবর অনুযায়ী,
এখন ভারতীয় সেনাবাহিনীর কমান্ডারদের ওপর অস্ত্র ব্যবহার করায় কোনো নিষেধাজ্ঞা থাকবে না because

অরুণাচল প্রদেশ ভারতের এক অবিচ্ছেদ্য ও অখণ্ড অংশ। because
তিনি বলেন, ‘অরুণাচল প্রদেশের বিষয়েও আমাদের অবস্থান বেশ কয়েকবার স্পষ্ট করা হয়েছে।
এটি উচ্চ পর্যায়সহ বেশ কয়েকটি অনুষ্ঠানে চীনা পক্ষকে স্পষ্টভাবে জানানো হয়েছে।’

তারা দাবি করছে because ভারতের সেনাবাহিনী ‘রুলস অব এঙ্গেজমেন্ট’ because সংঘাতের নিয়মে পরিবর্তন আনছে। সেনাবাহিনীর সূত্রকে উদ্ধৃত করে পত্রিকাটি এই খবর প্রকাশ করেছে।

ভারতের বেশ কিছু সিদ্ধান্ত ও বক্তব্য নিয়ে চীনের ভেতর ক্ষোভ এবং সন্দেহ তৈরির ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে, মস্কোতে সমঝোতার পরও সীমান্তে গুলি করার অনুমোদন দেওয়াসহ।

সোমবার সীমান্তবর্তী অঞ্চলে ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংয়ের প্রায় ৪৪টি সেতু উদ্বোধনের পরিপ্রেক্ষিতে মঙ্গলবার চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান বলেন,
বেইজিং ভারতের দ্বারা অবৈধভাবে প্রতিষ্ঠিত কেন্দ্রশাসিত লাদাখ অঞ্চল এবং অরুণাচল প্রদেশকে স্বীকৃতি দেয় না।

দু’পক্ষের কেউই সৈন্য সরায়নি। because বরং রসদ এবং সমরাস্ত্র জড়ো করার মাত্রা বেড়েছে বলে জানা গেছে। ওই বৈঠকের পর দু’সপ্তাহ পার হয়ে গেলেও সীমান্তে উত্তেজনা কমার কোনো লক্ষণ নেই।

সরকারি মুখপাত্র বা সরকারের সাথে ঘনিষ্ঠ হিসাবে পরিচিত মিডিয়াগুলোতে
ভারতের উদ্দেশ্য because নিয়ে প্রকাশ্যে প্রশ্ন তোলা হচ্ছে।
চীনা সরকারের মুখ থেকে এখনও সরাসরি কিছু শোনা না গেলেও,

Leave a Reply